রাজধানী থেকে ঝুলন্ত তার অপসারণ করা হবে

রাজধানী ঢাকা থেকে আগামী এক বছরের মধ্যে সকল ঝুলন্ত তার অপসারণ করা হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম। আজ বৃহস্পতিবার গুলশান-২ এ ঝুলন্ত তার অপসারণ অভিযানে তদারকি করতে গিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, রাজধানী থেকে আগামী এক বছরের মধ্যে সকল ঝুলন্ত তার নামিয়ে ফেলা হবে। যদি ন্যাশনওয়াইড টেরিস্ট্রিয়াল ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক (এনটিটিএন) এসব ঝুলন্ত তার অপসারণের কাজ না করে তাহলে ডিএনসিসি এ কাজ করবে। তার নেওয়ার জন্য ড্রেনের নিচ দিয়ে পাইপ দিয়ে দেওয়া হবে। সংস্থাগুলো সেই পাইপের মধ্য দিয়ে তাদের তার নিবে। এ জন্য তারা ডিএনসিসি-কে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ ফি পরিশোধ করবে। সংস্থাগুলোও এই প্রস্তাবে রাজি হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, রাজধানীতে ঝুলন্ত তারের জঞ্জালের জন্য বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি), ন্যাশনওয়াইড টেরিস্ট্রিয়াল ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক (এনটিটিএন), কেবল অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব), ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশসহ (আইএসপিএবি) সংশ্লিষ্ট সবগুলো সংস্থাই দায়ী।

মেয়র আরো বলেন, সংস্থাগুলোর প্রতিনিধিদের সঙ্গে ঝুলন্ত তার অপসারণের বিষয়ে যতবারই মিটিং করা হয়েছে তারা এর জন্য একে অন্যকে দায়ী করেছে। এমনকি তারা নিজেদের মধ্যে বিতর্কেও জড়িয়েছে। কিন্তু এর জন্য সবগুলো সংস্থাই সমানভাবে দায়ী। লাইসেন্স নিয়েও এনটিটিএন এ নিয়ে ১০ বছরে কোনো কাজ করেনি। এগুলো তদরক করার দায়িত্ব বিটিআরসির। তারাও তাদের কাজ ঠিকমতো করেনি।

আতিকুল ইসলাম আরো বলেন, ঝুলন্ত তার কাটার ফলে গ্রাহকরা যেনো ভোগান্তিতে না পড়েন, সেদিকটিও দেখা হচ্ছে। এমনভাবে তার অপসারণ করা হবে যাতে কোনো গ্রাহক অসুবিধায় না পড়েন। অনেক অভিভাবক বলেছেন, তাদের সন্তানরা করোনার এ সময়ে বাসায় বসে ইন্টারনেটের মাধ্যমে ক্লাস করে। এ জন্য সংস্থাগুলো সাতদিন সময় নিয়েছে। তাই এখন শুধু প্রধান সড়কের ওপর ঝুলে থাকা তার কাটা হচ্ছে। মোড় বা ক্রসিংয়ের তার কাটা হচ্ছে না।